HomeGovt SchemesIndian man posts suicide attempt photos on Facebook

Indian man posts suicide attempt photos on Facebook

হাত কেটে আত্মহত্যার চেষ্ঠা, প্রাণ বাঁচাল ফেসবুক ও পুলিশ

WhatsApp Group Join Now
Instagram Profile Join Now
YouTube Channel Subscribe

হাত কেটে আত্মহত্যার চেষ্ঠা, প্রাণ বাঁচাল ফেসবুক ও পুলিশ

শনিবার এক বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকল ইউএস থেকে ভারতের মানুষ। হাজার হাজার কিলোমিটার দূরে থেকেও ভারতের এক মানুষের প্রাণ বাঁচালো সোশ্যাল জায়েন্ট ফেসবুক (Facebook) সম্প্রতি এক ৩৯ বছর বয়সী মানুষের আত্মহত্যার ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট হওয়ার পরই ঘটেছে এই বিরল ঘটনাটি

তবে বলা যেতে পারে কার্যত ফেসবুক এবং দিল্লি পুলিশের (Delhi Police) দ্রুত হস্তক্ষেপের ফলেই প্রাণ রক্ষা করা গেছে ৩৯ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিটির।

পুলিশের এক প্রবীণ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাতে পশ্চিম দিল্লির (West Delhi) দ্বারকার (Dwarka) এক বাসিন্দা হাত কেটে আত্মহত্যার করার চেষ্ঠা করে। প্রতিবেশীর সঙ্গে বচসার পরে এই সিদ্ধান্ত নেয় ব্যক্তিটি।

মিষ্টির দোকানের এই কর্মীর দুটি সন্তানও রয়েছে। পাশাপাশি আরও যোগ করে জানানো হয়েছে, ২০১৬ সালে স্ত্রী মারা যাবার পর তিনি খানিকটা মানসিক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়েন।

Google News View Now

হাত কেটে আত্মহত্যার লাইভ ভিডিও পোস্ট করার পরে ফেসবুকের (Facebook) তরফে সতর্ক বার্তা হিসেবে ডিসিপি সিপ্যাড (CyPAD) আনিশ রায়কে একটি কল করা হয় পাশাপাশি ওই ব্যক্তির লাইভ ভিডিও সম্পর্কে পুরো ঘটনার বিবরণ দেওয়া হয় দিল্লি পুলিশের (Delhi Police) দফতরেও।

তথ্য পাওয়ার পরে ফেসবুকের (facebook) ভিডিওটি যাচাই করে দিল্লি পুলিশ। পাশাপাশি পুলিশের (Delhi Police) তরফে অ্যাকাউন্টে থাকা ফোন নম্বরে কল করে উত্তর না মেলায় ট্র্যাক করা হয় ঠিকানাটি। আর সেখান থেকে জানা যায় আত্মহত্যার ভিডিও পোস্টকরা সেই ব্যক্তিটি পশ্চিম দিল্লির দ্বারকার (Dwarka) বাসিন্দা।

  এছাড়াও দিল্লি পুলিশ (Delhi Police) আরও উল্লেখ করে বলেন, ঠিকানা মেলার পরে সিপ্যাড এর তরফে কাছাকাছি থাকা জরুরী প্রতিক্রিয়া বাহন (ERV) এবং সাবইন্সপেক্টর অমিত কুমারকে ঘটনার বিষয়টি জানানো হয়। এই তথ্য পেয়ে তৎক্ষণাৎ ওই ব্যক্তির ঠিকানায় হানা দেয় সাবইন্সপেক্টর অমিত।

রক্তাক্ত অবস্থায় ব্যক্তিটিকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তাকে ভর্তি করে স্থানীয় হাসপাতালে। গুরুতর অবস্থার কারণে প্রথমে এইমস ট্রমা সেন্টারে (AIIMS Trauma Centre) স্থানান্তরিত করা হলেও, পরে ব্যক্তিটির অবস্থার উন্নতি ঘটে বলে জানানো হয়েছে।

WhatsApp Group Join Now
Google News View Now
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular