Smart Update24,By Syed Mosharaf Hossain


চলুন আজকে স্মার্ট আপডেট24 নিয়ে যাচ্ছে আপনাকে পিরামিডের দেশে অর্থাৎ মিশরে।পিরামিড মিশর এটা আমাদের মাথায় এলে আমরা মনে করি সেই আগের ফেরো অর্থাৎ মিশরের রাজাদের কথা মমি এর কথা তাদের খাওয়া-দাওয়া তাদের বিজ্ঞান সবকিছুই। এই মিশর এবং পিরামিড মানবকে হাজার হাজার বছর ধরে ভাবিয়ে তুলেছে । মানুষ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছে নতুন নতুন কিছু আবিষ্কার করা তাদের লুকিয়ে থাকা কিছু কথা বের করা। কিছুদিন আগে মিশরের কিছু পুপ্রত্নতাত্ত্বিকরা আবিষ্কার করে ফেলেছেন 59 টি 2500 বছর আগে পুরনো যেটি এখনো অক্ষত অবস্থায় রয়েছে ।


পরবর্তীকালে সেই সব মমি দর্শকের সামনে সরাসরি টেলিকাস্ট করে দেখানো হয় । বিজ্ঞানীরা পরীক্ষামুলকভাবে একটি মমির বন্ধ থাকা দরজা খোলেন এবং সেখানে দেখতে পান মাটির দেহে থাকা কাপড় এখনো উজ্জ্বল অবস্থায় রয়েছে। প্রাচীন মিশরের রাজধানী মেমফিস এর অন্যতম শহর সাকারা  সেখানে এই মমি গুলো আবিষ্কার করা হয়েছে ।মিশরের প্রত্নতত্ত্ব ও পুরাকীর্তি কাউন্সিল আনন্দ প্রকাশ করেছে এমন আবিষ্কারের সংবাদে। তিন সপ্তাহ আগেই প্রথম ১৩ টি কফিন পাওয়া গিয়েছিল। যে প্রকোষ্ঠে পাওয়া গিয়েছে , আরো ১২ মিটার গভীরে খনন করে যেতেই বর্তমানের মমি গুলোর সন্ধান পান প্রত্নতাত্ত্বিকেরা। এখনও ধারণা করা হচ্ছে অসংখ্য কফিন এখানে সমাহিত করা আছে। কাছেই রয়েছে ৪৭০০ বছরের পুরোনো পিরামিড “জোসার”। পুরাকীর্তি বিষয়ক মন্ত্রী জানান এই আবিষ্কারের মাত্র সবে শুরু!


বিজ্ঞানীরা যখন সেই কাফিন গুলি পরীক্ষা করে দেখেন তারা দেখতে পান এইগুলি 2500 পুরনো এবং কাঠের তৈরি। বিজ্ঞানীরা অনুমান করছেন এগুলি প্রাচীন মিশরের শেষ শতাব্দীতে সমাহিত করা হয়েছিল। সঙ্গে আরও অনেক কিছু মমি পেয়েছিলেন যেগুলি মানুষের নয় সেগুলো ছিল  সাপ ব্যাঙ ইত্যাদি। তাছাড়াও এই খনন সাইট থেকে পাওয়া যায় বিভিন্ন ধরনের মূর্তি যাদেরকে প্রাচীন মিশরীয়রা দেবতা হিসেবে পূজো করত। প্রাথমিক পরীক্ষা ও ধারণ থেকে বুঝা যায় প্রাপ্ত মমি গুলো প্রাচীন মিশরের পুরোহিত, শহরের সম্মানীয় প্রতিনিধগণের যারা ছাব্বিশতম ডাইনেস্টির অন্তর্ভূক্ত। সবগুলো কফিন শীঘ্রই গিজার গ্র্যান্ড ইজিপশিয়ান মিউজিয়ামে নেয়া হবে।


গ্রান্ড ইজিপশিয়ান মিউজিয়াম ২০২১ সালের দিকে খুলে দেয়ার কথা ভাবছে সরকার। এখানে থাকবে প্রাচীন মিশরের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ কিছু শিল্পকর্ম, স্থাপনা, মমি এবং অনেক কিছু। মিশরের প্রত্নতত্ত্ববিদরা আশা করছেন ভবিষ্যতে আরো বহুবিধ প্রাচীন নিদর্শন আবিষ্কার করতে তারা সক্ষম হবেন এবং মানবজাতি হয়ত ধীরে ধীরে জানতে পারবে বিভিন্ন রহস্য সম্পর্কে। আজকের বর্তমান ভবিষ্যতের রহস্যময় ইতিহাস। সবসময়ই মানুষ ইতিহাসের বেড়াজালে আবদ্ধ থাকবে। কখনো বিস্ময় রূপে কখনো বা কূল কিনারা ছাড়া।


তথ্যসূত্রঃ sciencealert.com

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here